শিবপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বসতবাড়ীতে হামলা ও ভাংচুর

IMG_20200508_130338.jpg

নরসিংদী নিউজ২৪ ডটকমঃ
নরসিংদীর শিবপুরে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বসতবাড়ীতে হামলা ও ভাংচুর । স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ কুমিল্লা মিউনিসিপল কর্পোরেশনের সচিব সৈয়দ মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানের গ্রামের বাড়ি শিবপুর উপজেলার বাঘাব ইউনিয়নে এই হামলা ও ভাংচুর ঘটনা ঘটেছে।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ৬ মে সকাল ১১ ঘটিকার সময় ওই সচিবের বাড়ি সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে একই ইউনিয়নের বাহাদিয়া গ্রামের মৃত রতন মিয়ার ছেলে সবুজ মিয়া ও শহিদ মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া মোটরসাইকেল যোগে শিবপুরে দিকে যাচ্ছিলেন। ওই রাস্তায় গরু দেওয়া নিয়ে সচিবের বড় ভাই সৈয়দ সাইফুল ইসলামের সাথে সবুজ ও সোহেলের তর্কাতর্কি হয়। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে সাইফুল ইসলামের ছেলে আশিকুর রহমান বাড়ি থেকে এসে সবুজ ও সোহেল কে বাধা নিষেধ করায় তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর জের ধরেই সবুজ ও সোহেলের নেতৃত্বে কিছুক্ষণ পরে ১ ঘটিকার সময় ১৫/২০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল লোহার রড, রাম দাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাড়ির মেইনগেইট ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে এলোপাতাড়ি ভাবে বাড়িঘর ভাঙচুর চালায় এবং বারান্দার লোহার গেট ভেঙে ঘরের ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। এই ঘটনায় তাৎক্ষণিক আশিকুর রহমান শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে অবগত করলে মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা আজিজুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সাথেসাথে ঘটনাস্থলে উপস্থিত চারজনকে গ্রেপ্তার করে বাকিরা এলোপাতাড়িভাবে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মুছলেখা দিয়ে পরিবারের অভিভাবকগণ তাদের কে থানা থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।

এই বিষয়ে সচিব সৈয়দ মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মুঠোফোনে শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে ঘটনার সাথে জড়িত প্রত্যেকের তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ পূর্বক সকলকে আইনের আওতায় আনার জন্য অনুরোধ করেন এই মর্মে প্রতিবেদককে জানান এছাড়া সচিবের স্ত্রী শিবপুর হাসপাতালের কনসালটেন্ট শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ইসরাত জাহান এ্যানি এবং সচিবের মেজো ভাই বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শামসুল ইসলামের স্ত্রী সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট জনাবা আফরিনা বেগম ও মোবাইল ফোনে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বলেন গঠিত অপরাধের সাথে জড়িত কাউকে যেন ছাড় না দেওয়া হয় এই মর্মে প্রতিবেদক কে জানানো হয়।

আমাকে শেয়ার করুন

PinIt
scroll to top