নরসিংদীতে পরকীয়ার জেরে সেফটি ট্যাংকি থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

20200310_082139.jpg

নরসিংদী নিউজ ২৪ ডেস্কঃ
নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় পরকীয়ার প্রেমের জেরে আল কাইয়ুম নিপুণ (৩৩) নামে এক যুবকের লাশ সেফটি ট্যাংকি থেকে উদ্ধার করছে পুলিশ। এ ঘটনায় শশুর-শাশুড়িসহ সন্দেহজনক ৯ জনকে আটক করেছে। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার ভাগ্যের পাড়া গ্রামের মোকারমের বাড়ির সেফটি ট্যাংকের ভিতর থেকে ওই যুবকের বস্তাবন্দী গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ । এর আগে গত ৩ মার্চ সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন আল কাইয়ুম নিপুণ। নিহত কাইয়ুম নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলার গোতাশিয়া গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে। নিহতের ভাই জাহিদুল ইসলাম অপু জানান, কাইয়ুম গত ৩ মার্চ সন্ধ্যায় বন্ধুর কাছে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি । পরে তাকে না পেয়ে ৪ মার্চ নরসিংদী মডেল থানায় জিডি করা হয়। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে সোমবার সন্ধ্যায় নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে পলাশ থানার ওসি শেখ মো. নাসির উদ্দিন ও নরসিংদী মডেল থানার ওসি সৈয়দুজ্জামানসহ পুলিশের একটি টিম অভিযান চালিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, নিহত কাইয়ুমের সাথে ভ্যাগের পাড়া গ্রামের মোকারমের স্ত্রী ও এক সন্তানের জননী জেসমিন আক্তার সুমির সাথে পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। পরকীয়ার জেরে সুমির পরিবারের লোকজন কাইয়ুমকে হত্যা করে লাশ গুম করার জন্য বাড়ির পাশে সেফটি ট্যাংকে লুকিয়ে রাখে। এ ঘটনায় সুমীসহ ৯ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। পলাশ থানার ওসি শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান প্রেমিকা জেসমিন আক্তার সুমি প্রাথমিক ভাবে এই হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করায় আটক বাকী ৮ জনকে ছেড়ে দিয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আমাকে শেয়ার করুন

PinIt
scroll to top