পলাশের ঘোড়াশালে প্রতিমা বির্সজনের বাধা-আহত ১

20191010_183234.jpg

 

নরসিংদী প্রতিনিধি:-

নরসিংদী পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল উত্তর চরপাড়া দূর্গা মন্দিরে

সনাতন ধর্মাম্বলীদের দূর্গা উৎসবের প্রতিমা বির্সজনে বাধা প্রধান করে রনি দত্ত, জনি দত্ত ও ননী দত্ত নামে তিন মাদকসেবী। এর প্রতিবাদ করায় দূর্গা মন্দিরের সহ সাধারন সম্পাদক-বিজয় বনিক লোকু আহত হয়।এরপর পুলিশী পাহাড়ায় প্রতিমা বির্সজন দেওয়া হয়।এ ব্যাপারে পলাশ থানায় একটি জিডি করা হয়।জিডি-৩০৭

ঘটনার বিবরনে জানা যায়-পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর শহরের উত্তর চড়পাড়া মহল্লার দুলাল দত্তের দুই পুএ রনি ও জনি দত্ত অষ্টমির দিন(রবিবার দিবাগত রাত)১ টার দিকে পূজা মন্ডবে রনি,জনি ও ননী দত্ত মাদকাসক্ত অবস্থায় প্রবেস করে অশালীন ভাষায় গালমন্দ করতে থাকে এবং পূজা বন্দ করতে বলে।এতে পূজা মন্ডবের সহ সাধারন সম্পাদক-বিজয় বনিক লোকু পূজা মন্ডব থেকে তাদের কে বেড়িয়ে যেতে বল্লে রনি,জনি ও ননী দত্ত ক্ষিপ্ত হয়ে লোকু কে এলোপাথারি ভাবে মারতে থাকে এতে লোকু চোঁখে আঘাত পেয়ে মারাত্বক আহত হয়। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে রনি কে আটক করে।অজ্ঞাত কারনে সোমবার সকালে রনি কে পুলিশ ছেড়ে দেয়।এরপর মঙ্গলবার প্রতিমা বির্সজন দিতে গেলে ফের রনি,জনী ও ননী দত্ত দারালো অস্ত্র নিয়ে প্রতিমা বির্সজনে বাধা দেয়।পরে পুলিশ পাহাড়ায় শীতলক্ষ্যা নদীতে প্রতিমা বির্সজন দেওয়া হয়।

এলাকাবাসী জানায়-রনি ও জনী দীর্ঘদিন যাবৎ ইয়াবা ও মদের ব্যাবসা করে আসছে।তাদের অত্যাচারে সনাতন ধর্মা অনুসারীরা অতিষ্ট হয়ে পড়েছে।তাদের বিরোদ্ধে পলাশ থানায় চুরি,ছিনতায় সহ একাদিক মামলা রয়েছে।

দূর্গা মন্দিরের সভাপতি-সুমন চন্দ্র শাহা বলেন,রনি,জনী ও ননী দত্ত পূজা মন্ডবে প্রতিদিনিই নেশাগ্রস্থ অবস্থায় বিশৃংখলার সৃষ্টি করেছে।পূজা মন্ডবে আসা নারী,পুরুষ ও এলাকার সাধারন মানুষ আতংকিত থাকতে হয়েছে।তাদের নেশা করে পূজা মন্ডবে আসতে নিষেদ করলে তারা বিজয় বনিক লোকু র উপর চরাও হয়ে তাকে এলোপাথারী মেরে গুরুত্বর আহত করে।প্রতিমা বির্সজনের সময়ও তারা বাধা সৃষ্টি করলে ভয়ে এলাকাবাসী প্রতিমা বির্সজন দিতে পারেনি।পরে পুলিশী পাহাড়ায় আমরা প্রতিমা বির্সজন দেয়।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগিরা রনি,জনী ও ননী দত্তের বিরোদ্ধে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

আমাকে শেয়ার করুন

PinIt

Leave a Reply

scroll to top